কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

কবিতা (আষাঢ় ১৪২৭)

ফল গাছ বুনি
ড. সমজিৎপাল১

ফল খেলে বল মেলে, দেহ থাকে তাজা
ফল থেকে সবই পাই, দরকার যাযা।
চুকা-মিঠা নানা আম, নানান বরণ
স্বাদ আর পুষ্টিতে রাজার ধরণ।
কাঁঠাল জাতীয় ফল রস পাই গাঢ়
কাঁচা খাই, পাকা খাই, বীজ খাই আরো।
জাম দেয় রক্তটা রক্তেরই রঙে
ঔষধি গুণ পাই; নানারঙে-ঢঙে।
সারাটি বছর ধরে কলা-পেঁপে খাই
মাল্টা, কমলা আর নারকেল পাই।
কুল খাই, লিচু খাই কিছু দিন ধরে
পেয়ারার চেহারাটা দেখি ঘরে ঘরে।
আনারসরস দেয়, দেয় নানাপুষ্টি
তেঁতুলের আঁচারেতে পেয়ে যায় পুষ্টি।
জলপাই-য়ে জলও পাই, আরো পাই তেল
কোষ্ঠ কঠিন হলে বেশি খাই বেল
কদবেল, জামরুল, সফেদা ও আমড়া
কামরাঙা খেয়ে রাঙা শরীরের চামড়া।
ডাব খাই, গাব খাই, মিনারেল চেয়ে
রোগ প্রতিরোধ গড়ি আমলকি খেয়ে।
ডালিম আর শসা কাটে শরীরের মেদ
শরিফা ও আতা ফলে রয়েছে বিভেদ।
তরমুজ-বাঙি খেয়ে শীতল হোক দেহ
বেতফল ইদানিং চিনে নাতো কেহ।
তৈকর, লটকন কিংবা করমচা
সাথে আঁশফল খেলে, চা’বেনা গরম চা।
বিদেশি অনেক ফল হয়ে গেছে দেশি
স্ট্রবেরি, ড্রাগন ফলপাই বেশি বেশি।
নাশপাতি, এ্যাভোকেডো আরো কত ফল
আঙুর আপেলসহ রয়েছে সচল।
প্যাশন ও রাম্বুতান দেশে আছে জাত
ফল খেলে দেহ সয় অসুখের ঘাত।
করোনার মতো যতো কঠিন আছে রোগ
ফল খেলে থাকে নাতে কোনো দুর্ভোগ।
সারাক্ষণ এই সবই কান পেতে শুনি
তাইতো আসুন আজই ফল গাছ বুনি।

সবুজ পৃথিবী
 মো: জুন্নুন আলী প্রামাণিক২
মাটির আদরে অগণিত চারা উপরে তাকিয়ে দেখে,
জ্যৈষ্ঠের প্রখর রৌদ্রময় তেলে শিতল বৃষ্টিকে ডাকে।
বিচিত্র জাতের গাছপালা বাড়ে ভরসা উর্বর কোলে,
চাষির যতেœর দৃষ্টিসিমা নিত্য তরুন গাছের ডালে।
শূন্যতা পূরণে চারিদিকে দোলে চারার কোমল পাতা,
উপর আকাশে বড় বৃক্ষ কিছু ঘুচায় দুঃখ ব্যাথা।
সাহসে পূর্ণতা অর্জনের পথে আগ্রহ প্রকাশ করে,
চারার সেবার পরিসর জুড়ে সজাগ সেবক ঘোরে।
নতুন বনানী ভবিষ্যতে দেবে বিশুদ্ধ বায়ুর দোলা,
সুস্থতা নির্মল পরিবেশে ফেরে তাইতো নাসিকা খোলা।
মানব জীবনে তরুলতা সাথী বাঁচার সুপথ দাতা,
সুন্দর আবেশে অসুন্দর নাই শোনায় সুখের কথা।
ফলদ গাছের পাশাপাশি নাচে কাঠের গাছের চারা,
উন্নত ভুবন রুপায়নে তাজা চিত্রের নতুন সাড়া।
ঔষধি গাছের গুণাগুণ বেশি অসুখ আরোগ্য কত,
বাহিরে যেমন সুন্দরের ছবি অন্তরে ক্ষমতা শত।
প্রশান্ত স্বভাবে প্রশান্তির ছায়া প্রাণের উত্তাপ নাশে,
¯েœহের বাধনে উপকারি বৃক্ষ সারাটি জীবন পাশে।
বায়ুর শোধনে ভ‚মিকার সাক্ষ্য উপরে ছড়িয়ে দেয়,
গাছের কারণে জলবায়ু নিত্য সেবায় সচেষ্ট হয়।
শুদ্ধতা বাড়ানো দরকার আছে ফুলের সুবাস মাঝে,
সবুজ পৃথিবী গঠনের লক্ষ্যে প্রচেষ্টা রোপণ কাজে।
গাছের মাথায় গতিশীল প্রাণ প্রফুল্ল কর্মঠ খাটি,
আনন্দে পূর্ণতা অর্জনের পথে শিকড়ে জড়ায় মাটি।
সবুজ বেষ্টনী সারাক্ষণ দেয় জীবনে প্রেরণা শক্তি,
গাছের শাখায় পাখিসব বসে জানায় অসিম ভক্তি।
১পরিচালক (গবেষণা), বাংলাদেশ সুগারক্রপগবেষণাইনস্টিটিউট, ঈশ্বরদী, পাবনা। মোবাইল : ০১৭১২০২১১৪০, ই-মেইল :samajitpal@bsri.gov.bd 2গ্রাম : বিদ্যাবাগীশ, ডাকঘর ও উপজেলা : ফুলবাড়ী, জেলা : কুড়িগ্রাম, মোবাইল : ০১৭৩৫২০২৭৯৮

 


Share with :

Facebook Facebook