কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

বৈশাখ-১৪২৩

উন্নয়নের স্বপ্ন আর কর্মে, নতুনকে কর বরণ; নবীন আলোকে নব আনন্দে, শুভ হোক নববর্ষের আগমন। সময়ের আবর্তনে বাংলা ১৪২৩ সাল আমাদের দোরগোড়ায় উপস্থিত। বাংলা নববর্ষকে বরণ করতে দেশের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান নানা রঙে, নানা ঢঙে আয়োজন করে বৈশাখী অনুষ্ঠান। বাংলাদেশের লোকজ সংস্কৃতির অন্যতম ঐতিহ্য এই বৈশাখী মেলা বা বৈশাখী আয়োজন। কৃষিপ্রধান দেশ হিসেবে কৃষির বিভিন্ন ক্ষেত্রেও নব উদ্যম, নব প্রেরণার সঞ্চার হয়। এ সময় কৃষকের ঘরে আসে নতুন ধান আর মনে আসে আনন্দ ও খুশির বান। কৃষক-কৃষাণী সারা বছরের কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেন আর স্বপ্ন দেখেন আরও উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির। তাদের এ স্বপ্ন পূরণে বর্তমান কৃষিবান্ধব সরকার নানাভাবে, নানা কৌশলে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। ফলে দেশ তরতর করে এগিয়ে যাচ্ছে সমৃদ্ধির পানে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বে ধান উৎপাদনে চতুর্থ, মাছে চতুর্থ, সবজিতে তৃতীয়, আমে সপ্তম, আলুতে অষ্টম এবং ছাগল উৎপাদনে চতুর্থ স্থান লাভে সক্ষম হয়েছে। শুধু তাই নয়, ফসলের জাত উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান এখন সবার শীর্ষে। এ গৌরবময় অর্জন অব্যাহত রাখতে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। নববর্ষের সূচনালগ্নে আমাদের আহ্বান- ওহে নবীন ওহে প্রবীণ জাগাও মনে জাগরণ, নববর্ষে শপথ নাও করতে কৃষির উন্নয়ন।

সুপ্রিয় পাঠক ও চাষি ভাইয়েরা, আপনারা জানেন কৃষিকথা চলতি সংখ্যাটির মাধ্যমে ৭৬তম বছরে পদার্পণ করল। কৃষিকথা এমনই একটি ম্যাগাজিন, যা দেশের প্রত্যন্ত এলাকার কৃষক-কৃষাণীদের অত্যন্ত প্রিয়। ম্যাগাজিনটি এখন আর শুধু প্রিন্ট মিডিয়া হিসেবেই পরিচিত নয়, ইলেকট্রনিক মিডিয়া হিসেবেও ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে। কৃষির আধুনিক ও লাগসই প্রযুক্তি কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার মাধ্যমে কৃষির উন্নয়নই এ ম্যাগাজিনটির মূল উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য। গবেষণালব্ধ জ্ঞান বিস্তারে ম্যাগাজিনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। ম্যাগাজিনটিতে সাধারণত মাঠ ফসল, উদ্যান ফসল, ফুল, ফল, উদ্ভিদ সংরক্ষণ, মৃত্তিকা, মৎস্য, প্রাণিসম্পদ, বন, পরিবেশ, খাদ্য ও পুষ্টিবিষয়ক নিবন্ধ, গল্প, কবিতা, নাটিকা, প্রশ্নোত্তর, আগামী মাসের কৃষি প্রভৃতি সহজ সরল ভাষায় সবার বোধগম্য করে প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত লেখার মাধ্যমে লেখক, পাঠক, গবেষক, কৃষক, কৃষিকর্মী সবার মধ্যে সেতুবন্ধন রচিত হয়। শুধু তাই নয়, কৃষিকথা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মীদের জন্য হ্যান্ড বুক হিসেবে কাজ করে। কৃষিকথার মাধ্যমে প্রাপ্ত প্রযুক্তি জ্ঞান কৃষকের মাঠে বাস্তবায়ন করে দেশের কৃষি আজ উচ্চশিখরে আসন লাভে সক্ষম হয়েছে। দেশের খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে কৃষিকথার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।
অতএব, আসুন আমরা কৃষিকথার ৭৬তম বছরে পদার্পণ এবং নববর্ষ ১৪২৩ এর আগমনকে স্বাগত জানাই। একই সাথে নববর্ষে নব নব কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও তার বাস্তবায়নের মাধ্যমে কৃষিকথাসহ দেশের কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে এগিয়ে যাই। কৃষিকথার লেখক, পাঠক, গ্রাহক, শুভানুধ্যায়ী সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।


Share with :

Facebook Facebook