কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

প্রশ্নোত্তর (জ্যৈষ্ঠ-১৪২৩)

জাহিদুর রহমান
গ্রাম-চরপাকেরদহ, মাদারগঞ্জ, জামালপুর
প্রশ্ন : তরমুজের ক্ষেতে লালচে পোকা চারার পাতার রস চুষে খায়, কিভাবে এর দমন করব জানাবেন।
উত্তর : তরমুজের ক্ষেতে লালচে পোকাটি পামকিন বিটল। এটি নিয়ন্ত্রণে ক্ষেত সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হয়। গাছে বা পাতায় স্প্রে করে খুব একটা ফল পাওয়া যায় না। তবে গাছের গোড়া ও ছড়ানো ডালপালার (যদি মাটিতে থাকে) চারদিকে মাটিতে ২-৩ গ্রাম ক্লোরপাইরিফস বা কার্বোফুরান জাতীয় দানাদার কীটনাশক অনুমোদিত মাত্রায় ছিটিয়ে প্রয়োগ করতে হয়। এছাড়া এ পোকার ডিমপাড়া, কীড়া ও পুত্তলি অবস্থা মাটিতে কাটে বলে মাটি ওলট-পালট করে দিয়েও এদের নিয়ন্ত্রণ করা যায়।
মেহেদী হাসান
গ্রাম-গোরাই, মির্জাপুর, টাংগাইল
প্রশ্ন : পাট গাছের কচি পাতা কুঁকড়ে যায়। এ অবস্থায় করণীয় কী?
উত্তর : পাটক্ষেতে সাদা মাকড়ের আক্রমণ হয়েছে। এ মাকড় বৈশাখ মাস থেকে শুরু করে আশ্বিন পর্যন্ত (নাবি বীজ পাটে) পাট গাছের কচি পাতা আক্রমণ করে পাতার রস চুষে খায়, ফলে কচি পাতা কুঁকড়ে যায় এবং তামাটে রঙ ধারণ করে। আক্রমণের প্রকোপ বাড়লে পাতা ঝরেও যেতে পারে ও ডগা নষ্ট হয়ে যায়। এতে পরে শাখা-প্রশাখা বের হয়। আঁশের ফলন কমে যায় ও মানেরও অবনতি ঘটে। সাদা মাকড় নিয়ন্ত্রণে সালফার ৮০% পাউডার প্রতি লিটার পানিতে ৩ গ্রাম হারে ভালোভাবে মিশিয়ে আক্রান্ত ক্ষেতে ছিটাতে হয়। এছাড়া প্রতি লিটার পানিতে ৪ গ্রাম হারে থিওভিট ছত্রাকনাশক মিশিয়ে বিকেলে পাতার নিচের দিকে ভালোভাবে স্প্রে করেও সুফল পাওয়া যায়।
অনুকূল সরকার
গ্রাম-বদিয়াখালী, ফুলছড়ি, গাইবান্ধা
প্রশ্ন : লিচু ফলের উপরের ত্বক পুড়ে বাদামি রঙের হয়ে যায়। এর প্রতিকার জানতে চাই।
উত্তর : অতিরিক্ত তাপমাত্রায় লিচু ফলের উপরের ত্বক পুড়ে বাদামি রঙের হয়ে যায়। এর পর তা ভেতরের শাঁসকেও আক্রান্ত করে এবং শাঁসের মধ্যকার শর্করা ও ভিটামিন সি নষ্ট করে দেয়। ফলের শাঁসে পচন ধরে। আগাম জাতে (বোম্বাই, মোজাফফরপুরী, মাদ্রাজি) এ সমস্যা বেশি দেখা যায়। তবে নাবি জাতে (চায়না-৩, বেদানা) সমস্যা কম হয়। তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার বেশি এবং বাতাসের আর্দ্রতা ৬০% এর কাছাকাছি বা কম হলে এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করে। এ কারণে আক্রান্ত ফলের ত্বকে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ কমে যায়। বাদামি দাগ দ্রুত পুরো ফলে ছড়িয়ে পড়ে।
প্রতিকার :
১. প্রতিকার হিসেবে রোদ থেকে লিচু ফল কাগজ দিয়ে ঢেকে রাখা যেতে পারে। এতে কৃত্রিমভাবে তাপ কমানো ও আর্দ্রতা বাড়ানো যায়, যা লিচু ফলে দাগ হতে দেয় না।
২. যখন তাপমাত্রা বেড়ে যায় এবং আর্দ্রতা কমে যায় তখন সেচ প্রদান করা যেতে পারে (বিকেলে বা সন্ধ্যার পরে গাছের গোড়ার চারদিকে এবং স্প্রে আকারে পাতায় ও ফলে)।
৩. ফলে প্রাথমিকভাবে ক্যালসিয়ামজাতীয় সার (প্রতি ১০ লিটার পানিতে ২০-২৫ গ্রাম ক্যালসিয়াম ক্লোরাইড) স্প্রে করা যেতে পারে। তবে গাছে বার্ষিক সার প্রয়োগের সময় জিপসাম বিঘাপ্রতি ৬-৮ কেজি ব্যবহার করলে ভালো হয়।
আবদুল হান্নান
গ্রাম-বারবালা, মিঠাপুকুর, রংপুর
প্রশ্ন : নারকেল ফেটে যায়, গুটি আসার পর ঝরে যায়, পরিপক্ব হওয়ার পর পানি থাকে না।
উত্তর : বর্ষার শুরুতে ফল ধরে এমন গাছগুলোতে গাছপ্রতি ৭৫০ গ্রাম ইউরিয়া, ৫০০ গ্রাম টিএসপি, ৫০০ গ্রাম এমপি, ৬০ গ্রাম জিংক সালফেট এবং ৬০ গ্রাম বোরন সার প্রয়োগ করুন। পুনরায় বর্ষার শেষে আশ্বিন মাসে একই হারে সার প্রয়োগ করুন।
হাসান
গ্রাম-ধানগড়া, রায়গঞ্জ, সিরাজগঞ্জ
প্রশ্ন : আমি একটি পেঁপের বাগান করতে চাই। কী ধরনের মাটিতে পেঁপের চাষ করলে ভালো ফলন পাওয়া যায় এবং ছোট অবস্থায় পেঁপে গাছ স্ত্রী হবে না পুরুষ হবে চেনার উপায় কী? জানালে উপকৃত হবো।
উত্তর : বন্যামুক্ত এবং বৃষ্টির পানি জমে না এ ধরনের সুনিষ্কাশিত উঁচু জমিতে পেঁপে চাষ করতে হবে। মাটি বেলে দো-আঁশ হলে সর্বোত্তম। ছোট অবস্থায় পেঁপে গাছের স্ত্রী-পুরুষ চেনার সঠিক পদ্ধতি নেই, তবে সাধারণত চারার বেডে যেসব চারা অতি দ্রুত বেড়ে ওঠে তা পুরুষ গাছ হয়ে থাকে। প্রতিটি মাদায় ৩টি করে চারা লাগানো উচিত এবং বড় হওয়ার পর পুরুষ গাছের ফুল দেখা দিলে তা উপড়ে ফেলে প্রতি মাদায় একটি করে স্ত্রী গাছ রেখে দিতে হবে।
মিথুন
গ্রাম-বরতুলা, পীরগঞ্জ, ঠাকুরগাঁও
প্রশ্ন : আমার চায়না থ্রি লিচু গাছ আছে। প্রতি বছর প্রচুর ফুল আসে কিন্তু ফল হয় অল্প। কী করলে বেশি লিচু পেতে পারি। জানালে উপকৃত হব।
উত্তর : প্রতি বছর গাছপ্রতি ৫০ গ্রাম ম্যাগনেসিয়াম সালফেট, ৬০ গ্রাম নাফকো বোরন সার গাছের গোড়ায় প্রয়োগ করতে হবে। কার্তিক মাস থেকে শুরু করে পৌষ-মাস পর্যন্ত গাছে পানি ও সার দেয়া বন্ধ রাখতে হবে। মটরের দানা আকারের লিচুর গুটি হওয়া থেকে শুরু করে আশ্বিন মাস পর্যন্ত প্রতি ৩ দিন অন্তর গাছের চারদিকে বৃত্তাকার নালায় গাছপ্রতি ২০০ লিটার পানি সেচ দিতে হবে। লিচু ফল সংগ্রহ করার পর মাকড় আক্রান্ত বাদামি আবরণ পড়া সব পাতা ছাঁটাই করে পুড়িয়ে ফেলতে হবে। তারপর প্রতি লিটার পানিতে ২ মিলিলিটার টলস্টার ২.৫ ইসি অথবা ২.৫ গ্রাম হেসালফ ডি এফ ৮০% অথবা ২ গ্রাম ট্রাইসাল ৮০ ডব্লিউপি অথবা ২ গ্রাম সালফাভিট মিশিয়ে ৭ দিন পর পর ২ বার স্প্রে করতে হবে। লিচুর গুটি হলে আবার লিটোসেন স্প্রে করতে হবে। তার ২১ দিন পর আবার লিটোসেন স্প্রে করতে হবে। ফুল অবস্থায় লিটোসেন বা অন্য কোনো জৈব উজ্জীবক (হরমোন) স্প্রে করা যাবে না। ১৫ বছর বয়সে লিচু গাছের ফলধারণ বাণিজ্যিক হতে শুরু করে।
জনি
কাজিপাড়া, ডেমরা, ঢাকা
প্রশ্ন : আমাদের গাছে আম পাকার আগে বড় হয়ে ফেটে যায়। এ থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায় কী?
উত্তর : বোরনের অভাবে, পানির পরিমাণের তারতম্যের কারণে বা নির্দিষ্ট জাতের গুণাগুণের কারণে সাধারণত আম ফেটে যায়। এ সমস্যা সমাধানের জন্য প্রতি বছর আমগাছে সুষম মাত্রার সারের সাথে বোরন সার ব্যবহার করুন। নির্দিষ্ট মাত্রার বোরন সার মাটিতে বা পাতায় স্প্রে করে দেয়া যেতে পারে।
শামিম হোসেন
গ্রাম-মজিদপুর, পোরশা, নওগাঁ
প্রশ্ন : পুকুরের পানির ওপর সবুজ (রুম) বা বাদামি বর্ণের আস্তরণ দেখা যায়, কিভাবে সমাধান করা যায়?
উত্তর : কাপড় বা মশারি দিয়ে আস্তরণ তুলে ফেলতে পারলে ভালো। খড়ের দড়ি বেঁধে তা দিয়ে পুকুরের ওপরে টেনে এক কোণায় এনে তুলে ফেলা। অথবা রুম বা আস্তরণ একত্র করার পর তার ওপর ২০০-২৫০ গ্রাম ইউরিয়া সার ছিটিয়ে দিলে তা নষ্ট হয়ে যাবে। একরপ্রতি ২০-২৫টি ৫০ গ্রাম তুঁতের কাপড়ের পুঁটলি খুঁটিতে বেঁধে পানিতে ডুবিয়ে পানিতে ডুবিয়ে রেখে সবুজ আস্তরণ বা ব্লুম দূর করা যায়। এছাড়া শতকপ্রতি ০.৫ কেজি চুন প্রয়োগেও ফল পাওয়া যায়।
জাহাঙ্গীর আলম
গ্রাম-বাউরা, পাটগ্রাম, লালমনিরহাট
প্রশ্ন : পুকুরের পানি খুবই স্বচ্ছ, কিভাবে সবুজ করা যায়?
উত্তর : শতকপ্রতি মাছ থাকা অবস্থায় ০.৫ কেজি চুন, মাছ না থাকা অবস্থায় ১ কেজি চুন গুলিয়ে প্রয়োগ করতে হবে। এরপর ইউরিয়া শতক প্রতি ১০০ গ্রাম, টিএসপি ৫০ গ্রাম সাথে ৫-৭ কেজি গোবর সার বা কম্পোস্ট সার প্রয়োগ করতে হবে।
সাগর
গ্রাম-বরতুলা, পীরগঞ্জ, ঠাকুরগাঁও
প্রশ্ন : কবুতর ঝিমোচ্ছে, ঘুরে ঘুরে পড়ে যাচ্ছে, করণীয় কী?
উত্তর : ট্যাব, রেনামাইসিন ৫০০ মিলিগ্রাম অর্ধেক ট্যাবলেট গুঁড়া করে আধা লিটার পানির সঙ্গে মিশিয়ে অসুস্থগুলোকে আলাদা করে খেতে দিতে হবে। বাকি দ্রবণ সুস্থগুলোকে খাওয়াতে হবে। ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ২ থেকে ৩ ফোঁটা খাওয়ার পানির সাথে মিশিয়ে ৫ থেকে ৭ দিন খাওয়াতে হবে।
আমানুল্লাহ
গ্রাম-বাণিগ্রাম, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম
প্রশ্ন : বাছুরকে কত মাসে টিকা দিতে হয়?
উত্তর : বাছুরের বয়স অনুযায়ী যেসব টিকা দিতে হয় তাহলো-
৪৫ দিন              ক্ষুরারোগ
৪ মাস                ক্ষুরারোগ
৬ মাস                বাদলা
৬ মাস ২১ দিন     তড়কা
৭ মাস ১৪ দিন     গলাফুলা
৮ মাস ৭ দিন       প্লেগ
১০ মাস             ক্ষুরারোগ

 

রবিউল ইসলাম
গ্রাম- খুন্তি, হাতিয়া, নোয়াখালী
প্রশ্ন : গরুর আঠালি হয়েছে। কী করণীয়?
উত্তর : দুগ্ধবতী গাভী অথবা বকনাগাভীকে নিয়মিত জীবাণুনাশক দ্বারা গোসল করাতে হবে। গোসল শেষে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে যেন লেজের গোড়ায় পানি না জমে। এছাড়া দুগ্ধবতী গাভীকে আঠালি থেকে মুক্ত রাখার জন্য সকাল-বিকাল সব শরীর ভালোমতো চিরুনি বা ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করে দিতে হবে। ইঞ্জেকশন (আইভারমেকটিন) প্রতি ৫০ কেজি ওজনের জন্য ১ সিসি. চামড়ার নিচে প্রয়োগ করতে হবে।

 

কৃষিবিদ মোহাম্মদ মারুফ*
* সহকারী তথ্য অফিসার (শ. উ.), কৃষি তথ্য সার্ভিস, খামারবাড়ি, ঢাকা-১২১৫


Share with :

Facebook Facebook