কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

প্রশ্নোত্তর ১৪২৩

মো. আব্দুল ওহাব
চর যাদবপুর, আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গা

প্রশ্ন : বাড়িতে একটা কাঁঠাল গাছ আছে, কিন্তু কাঁঠাল পাকার আগে ফেটে যায় এবং কোষগুলোর গোড়ার দিকে শলার মতো, রস কম। এ অবস্থায় করণীয় কী?
উত্তর : কাঁঠাল গাছটিতে ইউরিয়া ও ফসফেট সার প্রয়োগ বন্ধ রাখুন। এর পরিবর্তে প্রতি বছর বর্ষার শুরুতে ৩০ কেজি হারে জৈবসার, ২৫০ গ্রাম হারে এমপি সার, ২০ গ্রাম হারে জিংক সালফেট (মনো) সার এবং ৪০ গ্রাম হারে বরিক এসিড সার প্রয়োগ করুন।
মো. রুহুল আমিন
পূর্ব সুখাতি, নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম

প্রশ্ন : কাঠের গাছে সার প্রয়োগ নিয়মাবলি জানতে চাই।
উত্তর : কাঠের গাছে সার প্রয়োগ নির্ভর করে মাটির প্রকৃতি বা গঠন, গাছের প্রজাতি ও বয়সের ওপর। জৈবসার গাছের গোড়ার চারদিকে ছিটিয়ে হালকা করে কুপিয়ে মিশিয়ে দিতে হয়। আধা পচা কম্পোস্ট গাছের গোড়ায় মালচ হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। অন্যান্য সার মাটির ওপর ছিটিয়ে দিয়ে হালকা করে কুপিয়ে দিতে হয়। বাড়ন্ত গাছের বেলায় গাছের গোড়া থেকে ৫০ থেকে ১৫০ সেমি. দূরে ১৫ সেমি. গভীর করে মাটি খুঁড়ে সার প্রয়োগ করে আবার তা ভরাট করে দিতে হয়। সাধারণভাবে প্রতিটি মেহগনি গাছে গোবর বা কম্পোস্ট সার ১৫ থেকে ২০ কেজি, ইউরিয়া ১৫০ গ্রাম, টিএসপি ১০০ গ্রাম, এমওপি বা পটাশ ১০০ গ্রাম এবং ছাট ৫০০ গ্রাম প্রয়োগ করতে হয়। প্রতি বছর গাছের বৃদ্ধির ধরন অনুযায়ী ২৫ থেকে ৫০ গ্রাম হারে রাসায়নিক সারের পরিমাণ বাড়াতে হয়। এরপর  হালকা সেচ দেয়া প্রয়োজন। তবে গাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে জৈবসার বা কম্পোস্ট সার প্রয়োগ করা হলে রাসায়নিক সারের প্রয়োজন পড়ে না। বছরে দুইবার কাঠের গাছে সার দিতে পারলে ভালো হয়।                                        
রুবেল আকন
বাবুগঞ্জ, বরিশাল

প্রশ্ন : লতাজাতীয় গাছে ফলন্ত অবস্থায় কোন সার, কী পরিমাণে এবং কীভাবে দিতে হয় জানালে উপকৃত হব।
উত্তর : লতাজাতীয় গাছ মাটিতে থাকলে ১৫ দিন বয়সে গাছের গোড়া থেকে ১ হাত দূর দিয়ে ৪ ইঞ্চি গভীর বৃত্তাকার নালা করে ২০ গ্রাম ডিএপি এবং ৫ গ্রাম এমওপি সার দেয়া যাবে। গাছের বয়স ৬০ দিন হলে ১৫ দিন পর পর ৫ গ্রাম ইউরিয়া এবং ৫ গ্রাম এমওপি সার প্রয়োগ করতে হবে। গাছ টবে থাকলে গাছের গোড়ায় কোনো রাসায়নিক সার দেয়া যাবে না এবং গাছের বয়স ১৫ দিন হলে প্রতি লিটার পানিতে ৪ মিলিলিটার হারে ভক্সল সুপার অথবা এক্সেল গোল্ড অথবা বেফোলান অথবা বায়োফার্টি মিশিয়ে ২১ দিন পর পর স্প্রে করতে হবে।
আমজাদ হোসেন
নিরালা, খুলনা

প্রশ্ন : আমার পেঁপে গাছের পেঁপের আকারে বিকৃতি দেখা যায়। প্রতিকারের উপায় জানাবেন।
উত্তর : মূলত বোরনের অভাবে স্ত্রী ও উভয়লিঙ্গ গাছের পেঁপের আকারে বিকৃতি দেখা যায়। পেঁপের ফুল লিঙ্গভেদে ছয় প্রকার। যথাযথ লিঙ্গ ধারণ না করলে পরাগায়নের ত্রুটির কারণে পেঁপে ফলধারণে অসুবিধা ও আকারে বিকৃতি দেখা যেতে পারে। যে কারণেই হোক না কেন, ছোট ফলে আকারে বিকৃতি দেখা গেলে প্রতি লিটার পানিতে ০.৫ মিলিলিটার হারে লিবরেল বোরন অথবা ২.৫ গ্রাম হারে বোরিক এসিড পাউডার মিশিয়ে ৭ দিন পর পর দুইবার স্প্রে করতে হবে। এছাড়া প্রতি লিটার পানিতে ১ ফোঁটা লিটোসেন নামক জৈবউজ্জীবক মিশিয়ে ২১ দিন পরপর ২ থেকে ৩ বার স্প্রে করতে হবে।
ছোটন
ঢাকাইপাড়া, দেবীগঞ্জ, পঞ্চগড়

প্রশ্ন : সুপারি গাছের ওপরের পাতাগুলো আগে হালকা হলদে ভাব হয় পরে আস্তে আস্তে শুকিয়ে গাছ মারা যায়। কী করণীয়।
উত্তর : এটি সুপারি গাছের কুঁড়ি পচা রোগ। আক্রান্ত গাছকে অধিকাংশ সময় বাঁচানো যায় না। তবে অন্য গাছকে এ রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে হলে আক্রান্ত গাছ কেটে পুড়িয়ে ফেলতে হবে এবং অন্য গাছে কপারযুক্ত ছত্রাকনাশক (কুপ্রাভিট) স্প্রে করতে হবে। কপারজাতীয় ছত্রাকনাশক হিসেবে বোর্দোমিশ্রণ স্প্রে করা যেতে পারে।
আমানত উল্লাহ
বড়বালা, মিঠাপুকুর, রংপুর

প্রশ্ন : আখের মাথা শুকিয়ে যাচ্ছে। কাণ্ডে ছিদ্র এবং ভেতরে হলুদ গুঁড়া গুঁড়া দেখা যায়। কী করণীয়।
উত্তর : আখে মাজরা পোকার আক্রমণে এমন হয়। এজন্য-

  • আক্রান্ত গাছ কেটে ধ্বংস করতে হবে।
  • আলোক ফাঁদ ব্যবহার করতে হবে।
  • আক্রমণ বেশি হলে করটাপ ৪জি, ডায়াজিনন বা লেবাসিড ২ মিলি প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে।
  • পরবর্তীতে মুড়ি আখ চাষ না করা এবং জমি চাষ দিয়ে ফেলে রাখতে হবে।

রতন মিয়া
গ্রাম : কাঁঠালী

উপজেলা : জলঢাকা, জেলা : নীলফামারী
প্রশ্ন : সিলভার কার্প ও কাতলা মাছের মাথা মোটা এবং লেজ চিকন হয়ে আসে, করণীয় কী?
উত্তর : পুকুরে পর্যাপ্ত খাদ্যের অভাব হলে এমন হয়। পুকুরে প্রাকৃতিক খাবার তৈরির জন্য প্রতি সপ্তাহে শতাংশপ্রতি গোবর ৪ কেজি, ইউরিয়া ৫০ গ্রাম এবং টিএসপি ২৫ গ্রাম হারে প্রয়োগ করতে হবে। পাশাপাশি প্রতিদিন সম্পূরক খাদ্য হিসেবে চালের কুঁড়া, খৈল, ভুসি ভিটামিন ইত্যাদি একত্রে মিশ্রিত করে মাছের ওজনের ৫% হারে সকালে ও বিকালে নির্দিষ্ট হারে পুকুরে দিতে হবে।
উসমান আলী
গ্রাম : নাজিরপুর

উপজেলা : জলঢাকা, জেলা : নীলফামারী
প্রশ্ন :  কোন ধরনের মাছ কোন পুকুরে ছাড়া লাভজনক?
উত্তর : ১০ শতকের বেশি আয়তনের পুকুর কাতলা, সিলভার কার্প, রুই, সরপুঁটি, কমনকার্প, মৃগেল ও গ্রাসকার্প ছাড়া যায়। পুকুর ১০ শতকের কম হলে এবং ৬ থেকে ৭ মাস পানি থাকলে সরপুঁটি সিলভার কার্প ও নাইলোটিকা মাছ ছাড়া লাভজনক। নতুন চাষি হলে কার্পজাতীয় মাছ চাষ করবেন। দ্বিতীয় বছর সে অন্য মাছ চাষ করবেন। পুরাতন অভিজ্ঞ চাষির জন্য মনোসেক্স তেলাপিয়া বা পাঙ্গাশ মাছ চাষ করা বাঞ্ছনীয়।
জাহাঙ্গীর
গ্রাম : ঝুড়ঝুড়ি, থানা : তারাশ
জেলা : সিরাজগঞ্জ

প্রশ্ন : গরুর বদহজমে করণীয় কী?
উত্তর : বদহজম হলে গরু বা গাভী দুর্বল হয়ে পড়বে এবং দুর্গন্ধযুক্ত পায়খানা করবে। এক্ষেত্রে ১০০ কেজি ওজনের জন্য কসভেট ২টি ট্যাবলেট একত্রে একবার করে তিন দিন এবং জাইমোভেট সকালে ও প্যাগেট বিকেলে ২০ গ্রাম করে ৩ দিন খাওয়াতে হবে।
শামীম
গ্রাম : সকদিরামপুর, উপজেলা : ফরিদগঞ্জ
জেলা : চাঁদপুর

প্রশ্ন : গরুর শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট। কী করলে এ কষ্ট লাঘব হবে?
উত্তর :
Inj. Penicilin ৪০ লাখ রোজ ১ বার ৪ থেকে ৫ দিন মাংসে পুশ করতে হবে।
-
Inj. Histavet ৫ মিলি করে রোজ ১ বার ৪ থেকে ৫ দিন মাংসে পুশ করতে হবে।
রবিউল
গ্রাম : তারাকান্দা, উপজেলা : মুক্তাগাছা
জেলা : ময়মনসিংহ

প্রশ্ন : গরুর ডায়রিয়া। ব্যবস্থাপত্র দিলে খুশি হবো।
উত্তর : ট্যাবলেট সালফা প্লাস ৪০ কেজি ওজনের জন্য ১টি, দ্বিতীয় ডোজ প্রথম ডোজের অর্ধেক দিনে ৩ বার, যতক্ষণ নিয়ন্ত্রণ না হয়।
- ভ্যাটেরিনারী স্যালাইন দিনে ১টা ৩ দিন খাওয়াতে হবে।

কৃষিবিদ মোহাম্মদ মারুফ*
* সহকারী তথ্য অফিসার (শ.উ), কৃষি তথ্য সার্ভিস, খামারবাড়ি, ফার্মগেট, ঢাকা-১২১৫


Share with :

Facebook Facebook