কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

কৃষিকথা পৌষ (সম্পাদকীয়-১৪২২)

পৌষ মাস। শীতের ফসল আর পিঠাপুলির মাস। শিশির ভেজা ঘাস আর কুয়াশার চাদরে ছেয়ে যায় গ্রামবাংলার মাঠ-ঘাট-প্রান্তর। শীতের জড়তা ফুঁড়ে লাল সূর্য উদিত হয় পূর্ব আকাশে। শিশুরা চিঁড়া, মুড়ি ও পিঠা খায় আর রোদ পোহায় দলবেঁধে। কৃষকরা মাঠে যায় রবি ফসলের চাষ করতে। গ্রামীণ জীবনের এ এক চির চেনা সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য। তবে সময়ের বিবর্তনে কৃষি কর্মকাণ্ডের অনেক পরিবর্তন এসেছে। হালের বলদের দেখা এখন কমই মেলে। কলের লাঙল, সেচের পাম্প, ধান-গম কাটার যন্ত্র, মাড়াইযন্ত্র প্রভৃতির প্রচলন এখন চোখে পড়ার মতো বলা যায়। কৃষি শ্রমিকের অভাব এবং উৎপাদন ব্যয়জনিত কারণে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ এখন সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে। বীজ, সার, সেচ, যত্ন চারে মিলে হয় রত্ন । এটি খনার বচন নয়; এ যুগের কৃষি প্রবচন। বচনটির সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা করলে যা পাওয়া যায় তাহলো- ভালো ফলন পেতে হলে ভালো বীজের ব্যবহার এবং সময়মতো সার, সেচ ও যত্ন পরিচর্যা করতে হবে। এখানে যত্ন-পরিচর্যা বলতে আগাছা, রোগবালাই ও পোকামাকড় দমন করাকেই বুঝায়। তবে একটি বিষয় আমাদের মনে রাখা দরকার পারতপক্ষে রাসায়নিক পদ্ধতির বদলে জৈব পদ্ধতির প্রয়োগ বেশি করাই বাঞ্ছনীয়। কারণ এতে মাটির স্বাস্থ্য যেমন ভালো থাকে তেমনি মানুষের স্বাস্থ্যও ভালো থাকে। অর্থাৎ জৈব প্রযুক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে উৎপাদিত খাদ্যশস্যে জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বিষাক্ত কোনো পদার্থ থাকে না।

 

চাষি ভাইয়েরা, আপনারা জানেন, আধুনিক কৃষি ব্যবস্থাপনায় উৎপাদন বেড়েছে অথচ মাটির উর্বরতা ও উৎপাদিকা শক্তি কমছে, উচ্চমাত্রায় রাসায়নিক ব্যবহারের ফলে মাটিতে ও কৃষিপণ্যে ক্ষতিকর প্রভাব পড়ছে। এ কারণে মাটির উর্বরতা ও উৎপাদন ক্ষমতা ঠিক রাখতে, বালাইনাশকের প্রভাবে যাবতীয় স্বাস্থ্যহানী কমাতে, পরিবেশ সংরক্ষণ করে পরবর্তী বংশধরদের জন্য উপযোগী করতে, বালাইনাশকের মাধ্যমে পরিবেশ দূষিত হওয়া রোধ করতে, পৃথিবীর বুকে নিরাপদ জীবনযাপন, পরিবেশ সংরক্ষণ ও মাটির গুণাগুণ বজায় রাখার জন্য জৈব কৃষি ব্যবস্থার একান্ত প্রয়োজন।
 

আমরা আশা করি চাষি ভাইয়েরা নিজের, দেশের ও দশের স্বার্থে জৈব কৃষি প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন করে দেশকে স্বাস্থ্য ও সম্পদে স্বয়ংসম্পূর্ণ করে গড়ে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবেন।


Share with :

Facebook Facebook