কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

সম্পাদকীয় জ্যৈষ্ঠ-১৪২২

জ্যৈষ্ঠ মাস। এ মাসে শহর কিংবা গ্রামের বাজারগুলোতে দেখা যায় নানা রকম ফলের সমাহার। ফলের সুমধুর ঘ্রাণ আর মৌমাছির গুঞ্জরণে মুখরিত হয় চারদিক। ফলের মিষ্টি রসে সিক্ত হয় শিশু-কিশোরদের মায়াবী মুখ। ‘পাকা জামের মধুর রসে রঙিন করি মুখ-কবির এ কথায় গ্রাম বাংলার বাস্তব চিত্র ফুটে ওঠে। জাম পুষ্টি ও ঔষধি গুণে ভরপুর। জামে রয়েছে ভিটামিন সি, জিঙ্ক, কপার, গ্লুকোজ, ডেক্সট্রোজ ও ফ্রুকটোজ, ফাইবার, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও স্যালিসাইলেটসহ অসংখ্য উপাদান। জাম স্মৃতিশক্তি প্রখর রাখতে সাহায্য করে। ডায়াবেটিক রোগীদের রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণ করে শরীর সুস্থ রাখে। জামে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি। যার জন্য এটা দেহে ভিটামিন সি-এর ঘাটতি পূরণ করে এবং একই সঙ্গে ভিটামিন সি-এর অভাবজনিত রোগ প্রতিরোধ করে।


এছাড়া মুখের দুর্গন্ধ রোধ, দাঁত মজবুত, মাঢ়ি শক্ত এবং মাঢ়ির ক্ষয়রোধেও জামের জুড়ি নেই। এতে বিদ্যমান পানি, লবণ ও পটাসিয়ামের মতো উপাদান গরমে শরীর ঠাণ্ডা এবং শারীরিক দুর্বলতাকে দূর করে। জামে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে, যা রক্তস্বল্পতা দূর করে। জাম রক্তের কোলস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃৎপিন্ড ভালো রাখে। এছাড়া জামের বীচি, ছাল ও পাতার রস অনেক রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে। ফসলের বীজ শোধনে জাম পাতার রস ব্যবহৃত হয়। এক কথায় জাম বহুগুণে গুণান্বিত এক ফলের নাম। আমরা আশা করি অন্যান্য ফলের পাশাপাশি প্রত্যেকেই  অন্তত একটি জামের চারা রোপণ করবেন এবং তা থেকে ফল ভোগ করে উপকৃত হবেন।


সুপ্রিয় চাষি ভাইয়েরা, আপনারা জানেন জ্যৈষ্ঠ মাস এখন শুধু ফলের মাসই নয়, জ্যৈষ্ঠ মাস বোরো ধান সংগ্রহ ও সংরক্ষণেরও মাস। এ মাস ফলের সঙ্গে ফসলের প্রাপ্তিযোগের কারণে কৃষক-কৃষাণী ভাইবোনদের মন প্রাণও আনন্দরসে ভরপুর থাকার কথা। কারণ এখন দেশের মোট আবাদি জমির বেশির ভাগেই বোরো ধানের চাষ হয়ে থাকে এবং এ ধান জ্যৈষ্ঠ মাসেই ঘরে তোলা হয়। তাই নতুন ধান ঘরে তোলার আনন্দ ও পাকা ফলের রসে রসনাতৃপ্তি এ যেন এক স্বপ্নপুরি-শান্তির নীড়। আমরা চাই সারা বছর আপনারা মনে প্রাণে আনন্দে থাকুন, শান্তি-সুখের নীড়ে থাকুন, দেশের সমৃদ্ধিতে অবদান রাখুন।

 


Share with :

Facebook Facebook