কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

কৃষি তথ্য ও পরামর্শ সেবায় কৃষকের জানালা

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক অগ্রগতি অর্জন করেছে। সে অর্জনের সুফল যেন দেশের সকল কৃষক সমানভাবে পায় এবং তথ্যপ্রযুক্তির পাখায় ভর করে কৃষকদের জন্য দরকারি নানা তথ্য ও পরামর্শ যেন সহজেই কৃষকের কাছে পৌঁছতে পারে সে জন্য কৃষিতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে অনেক আগেই। এ ক্ষেত্রে হাতের ছোঁয়ায় তথ্য সেবা, ই-বুক, কৃষি ডাক্তার, কৃষি কল সেন্টার, রাইস নলেজ ব্যাংক এবং কৃষিভিত্তিক বিভিন্ন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ও ওয়েবসাইটের কথা উল্লেখ করা যেতে পারে। এসব উদ্যোগের ফলে কৃষি প্রযুক্তি সংক্রান্ত জ্ঞান ব্যবস্থাপনা এবং কৃষি তথ্য ও পরামর্শ সেবায় গতিশীলতা এসেছে। এক্ষেত্রে সাম্প্রতিক কিছু উদ্ভাবনী উদ্যোগ সে গতিশীলতাকে আরও ত্বরান্বিত করেছে। এরকম একটি উদ্যোগ হলো ‘কৃষকের জানালা’। কৃষকদের ফসলের নানা সমস্যার তথ্য ভাণ্ডার।


কৃষকের জানালা কী?
কৃষকের জানালা হলো কৃষকদের ফসলের বিভিন্ন সমস্যার (রোগ, পোকামাকড়, সারের ঘাটতিজনিত সমস্যা ইত্যাদি) একাধিক চিত্র ফসলভিত্তিক যৌক্তিকভাবে সাজিয়ে এবং তার সাথে সমস্যার সমাধান যুক্তকরে তৈরি করা একটি তথ্য ভাণ্ডার। এটি ভেক্সটর কম্পিউটার, ল্যাপটব, স্মার্টফোন ও অন্যান্য কম্পিউটার ডিভাইসে সহজেই ব্যবহার করা যায়। এখানে ব্যবহারকারী ছবি দেখে ফসলের যে কোনো সমস্যাকে সহজেই চিহ্নিত করতে পারেন এবং চিহ্নিত ছবিতে ক্লিক করলেই সমস্যার সমাধান দৃশ্যমান হয়। এক কথায়-কৃষকদের ফসলের মাঠকেই তুলে আনা হয়েছে কৃষকের জানালায়।


কৃষকের  জানালা কেন?
কৃষকের জানালা কৃষি তথ্য ও পরামর্শ সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে একটি নতুন সংযোজন। কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানকারী সর্ববৃহৎ সরকারি প্রতিষ্ঠান কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নাগরিক সেবা সনদের বার (১২) নম্বর অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে- ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে অতি দ্রুততার সাথে কার্যকরভাবে কৃষি বিষয়ক সকল তথ্য ও প্রযুক্তি কৃষকদের কাছে পৌঁছে দিয়ে দেশে ই-কৃষি সেবা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। কৃষকের জানালা এটি নিশ্চিত করার জন্য একটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ। কৃষকের জানালা আসলে কৃষককে সেবা প্রদানের জন্য সম্প্রসারণ কর্মীকে তৈরি রাখে। এটি সেবা গ্রহীতা ও সেবা প্রদানকারী উভয়ের জন্যই সহায়ক। যা সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে খরচ, সময় ও কৃষকের বার বার আসা-যাওয়াকে কমাতে সহায়তা করে এবং সেবার মান বৃদ্ধি করে।


কৃষকের জানালার সুবিধা
১. যে কোনো ফ্লাস ড্রাইকে সহজেই বহন করা যায়।
২. ইন্টারন্টে সংযোগের প্রয়োজন নেই।
৩. যে কোনো কম্পিউটার ডিভাইসে চলে।
৪. অ্যানড্রোয়েট মোবাইলেও চলে।
৫. অতিরিক্ত কোনো খরচ নেই।
৬. ব্যবহার করা সহজ।
৭. এটি ব্যবহার করার ফলে কৃষক ও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মীর মধ্যকার ‘কমিউনিকেশন  নয়েজ’ সর্বনিম্ন হয়।
৮. এটি পরিবেশবান্ধব
৯. অংশগ্রহণমূলক
১০. এটি ফসলের বালাইসংক্রান্ত তথ্যের একটি প্রমিত উৎস

 

কৃষকের জানালার ব্যবহারবিধি
১. কৃষকের জানালা ফোল্ডারটি আপনার কম্পিউটার/মোবাইলে কপি করুন।
২. এর ‘হোম’ ফাইলটি ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার/ এইচটিএমএল ভিউয়ার বা যে কোনো ব্রাউজার দ্বারা ওপেন করুন।
৩. মূল পাতায় প্রবেশ করুন এবং আপনার কাছে আগত কৃষককে তার ফসলের সমস্যার ছবিগুলো দেখান।
৪. কৃষকের চিহ্নিত ছবিতে ক্লিক করুন।
৫. সমাধানটি কৃষককে বুঝিয়ে দিন অথবা প্রিন্ট করে একটি কপি তাকে সরবরাহ করুন।
৬. ‘মূল পাতায় ফিরে চলুন’ ক্লিক করে হোম পেজে ফিরে আসুন।
৭. ব্রাউজারের উপরে বাম কোণে অবস্থিত ‘ফরওয়ার্ড’ ও ‘ব্যাক’ অ্যারোতে/ ‘আগের পাতায় ফিরে চলুন’ ক্লিক করেও আপনি সামনে পেছনে যেতে পারেন।
৮. সমস্যার কারিগরি দিক বুঝে উপযুক্ত সমাধান দেয়ার জন্য হোম পেজের ‘ব্যবহারবিধি’ অংশটুকু অবশ্যই ভালোভাবে পড়ে নিন।
৯. একইভাবে মোবাইলেও ‘কৃষকের জানালা’ ব্যবহার করা যায়।
১০. অপেশাদার ব্যবহারকারীরা ছবির সাথে সমস্যা সতর্কতার সাথে মিলিয়ে নিন।
১১. সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হলে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


কৃষকের জানালার মাধ্যমে কৃষক যেখান থেকে সেবা পেতে পারেন।
    √ উপজেলা কৃষি অফিস
    √ কৃষক তথ্য ও পরামর্শ কেন্দ্র (ফিয়াক)
    √ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (তথ্য ও সেবা কেন্দ্র)
    √ উপসহকারী কৃষি অফিসার
    √ একজন অগ্রসর কৃষক নিজেও এটি  ব্যবহার করে তার ফসলের সমস্যার সমাধান পেতে পারেন।

 

পরিবেশবান্ধবতা ও জনস্বাস্থ্যের প্রতি দায়বদ্ধতা
‘কৃষকের জানালা’য় ফসলের বালাইব্যবস্থাপনায় পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিসমূকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এবং কৃষকের আচরণগত পরিবর্তন যোগাযোগ বা ফারমার্স বিহ্যাভিয়রাল চেঞ্জ কমিউনিকেশন (এফবিসিসি) শিরোনামে এমন কিছু বার্তা কৃষককে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে, যা পালন করলে ফসলে বালাই আক্রমণের ঘটনা কমে আসবে এবং রাসায়নিক বালাইনাশকের ব্যবহারও কমে আসবে। এছাড়া এতে সুনির্দিষ্ট বালাইনাশকের পরামর্শ দেয়া হয়েছে, যা এলোপাতাড়ি বালাইনাশকের ব্যবহার কমিয়ে আনবে। কৃষকের জানালা কৃষকের কাছে তাদের বিভিন্ন ফসলের সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কিত তথ্য সহজলভ্য করবে। এটি ফসল উৎপাদনে কৃষককে পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন করে তুলবে বলেও আশা করা যায়।

 

কৃষিবিদ মো. আবদুল মালেক*

* কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক, ডিজিটাল কমপ্লিশন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডাইজেশন অব প্লান্টস প্রবলেম আইডেনটিফিকেশন সিস্টেম (ডিপিপিআইএস) প্রকল্প, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ফুলবাড়ীয়া, ময়মনসিংহ

 


Share with :

Facebook Facebook