কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

প্রশ্নোত্তরে কৃষকের জানালা

কৃষি সম্প্রসারণ সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে কৃষকের জানালা এরই মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ কৃষি সম্প্রসারণ টুলস হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। ফসলের নানা সমস্যার সমাধান সংক্রান্ত কৃষি তথ্য ও পরামর্শের জন্য সরকারি বেসরকারি অনেক কৃষি সম্প্রসারণ কর্মী ও অগ্রসর কৃষক কৃষকের জানালা ব্যবহার করছেন। ব্যবহারকারীদের নানা প্রশ্নের উত্তর থাকছে প্রশ্নোত্তরে কৃষকের জানালা শীর্ষক এ নিবন্ধে।
কৃষকের জানালার বিষয়ে সচরাচর যেসব প্রশ্ন করা হয়  
প্রশ্ন : কৃষকের জানালা কী?
উত্তর : কৃষকের জানালা কৃষকদের বিভিন্ন ফসলের ফসলভিত্তিক নানা সমস্যার চিত্র যৌক্তিকভাবে সাজিয়ে তৈরি করা একটি তথ্যভা-ার। এখানে ছবি দেখে কৃষক নিজেই তার সমস্যাটি চিহ্নিত করতে পারেন এবং চিহ্নিত ছবিতে ক্লিক করলেই সমস্যার সমাধান মনিটরে ভেসে উঠবে। এখানে মাঠ ফসল, শাকসবজি, ফলমূল ও অন্যান্য গাছের রোগবালাই, পোকামাকড়, সারের ঘাটতি বা অন্যান্য কারণে যেসব সমস্যা হয়, সেসব সমস্যা ও তার সমাধান যুক্ত করা হয়েছে। প্রতিটি সমস্যার একাধিক ছবি এবং কমপক্ষে একটি প্রতিনিধিত্বপূর্ণ ছবি যুক্ত করা হয়েছে, যাতে কৃষক সহজেই তার সমস্যাটি চিহ্নিত করতে পারেন।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার শুরুটা হয় কিভাবে?
উত্তর : জনাব মো. আব্দুল মালেক, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার (তৎকালীন), ফুলবাড়ীয়া, ময়মনসিংহয়ের একটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ হলো ডিজিটাল সিস্টেম অব প্লাণ্টস প্রবলেম আইডেনটিফিকেশন (ডিপিপিআইএস)। কৃষি পরামর্শ সেবা নিতে এসে যেসব কৃষক তাদের ফসলের সমস্যাটি ভালোভাবে বলতে পারেন না, তাদের তাদের ফসলের সমস্যা বলতে সহযোগিতা করার জন্য মাঠে সচরাচর হয় এমন কিছু সমস্যার ছবি তুলে কম্পিউটারে রাখা হয়। এরপর কৃষক কোনো সমস্যা নিয়ে এলে যারা সমস্যার কোনো নমুনা নিয়ে আসেন না, তাদের সে ছবিগুলো দেখানো হয়। দেখা গেল এটি খুব ভালো কাজ করেছে। কৃষক ছবি দেখে নিজেই তার ফসলের সমস্যাটি চিহ্নিত করতে পারছেন। এরপর ছবিগুলোর সাথে সমস্যার সমাধান যুক্ত করা হলো। এবার এটি ফসলের সমস্যার সমাধান দেয়ার ক্ষেত্রে কৃষক ও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মী উভয়ের জন্যই সহায়ক হলো। কৃষকদের মতামত নেয়ার জন্য একাধিক জরিপ পরিচালনা করা হয়। এতে দেখা যায় যেসব কৃষক তখনও এ পদ্ধতিতে সেবা নেননি তাদের মধ্যে ৭৬% এবং যারা এ পদ্ধতিতে সেবা নিয়েছেন তাদের মধ্যে ১০০% কৃষক মনে করেন পদ্ধতিটি তাদের জন্য সহায়ক। পরবর্তীতে এ ধারণাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম পরিচালিত ‘পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন বাংলাদেশ’ নামক ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করা হয়। এতে উৎসাহব্যঞ্জক সাড়া পাওয়া যায়। অসংখ্য মন্তব্য ও পরামর্শ আসে বিশিষ্টজনদের কাছ থেকে। পরামর্শ আসে ডিপিপিআইএসের একটি বাংলা নাম দিয়ে তা কৃষকদের মাঝে জনপ্রিয় করার। সে আলোকেই ডিপিপিআইএস এর নামকরণ করা হয় ‘কৃষকের জানালা’। জানালা দিয়ে উঁকি দিয়ে যেমন কৃষক তার ক্ষেত/ফসল দেখতে পায়, তেমনি এ কৃষকের জানালায় উঁকি দিয়েও কৃষক তার ক্ষেতের বা ফসলের সমস্যা ও তার সমাধান দেখতে পাবে। কৃষেকের জানালাকে পূর্ণাঙ্গরূপে তৈরি করতে এবং বিশেষজ্ঞদের দ্বারা প্রমিতকরণের জন্য এটুআই প্রোগ্রামের সার্ভিস ইনোভেশন ফান্ডে ডিজিটালি কমপ্লিশন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডাইজেশন অব প্লান্টস প্রবলেম আইডেনটিফিকেশন সিস্টেম (ডিপিপিআইএস) নামে একটি প্রকল্প প্রস্তাব জমা দেয়া হয়। অনেক যাচাই বাছাই শেষে প্রকল্পটি পুরস্কৃত হয়।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালা কিভাবে তৈরি করা হয়?
উত্তর : প্রায় দুই বছর ধরে সারা দেশ থেকে বিভিন্ন ফসলের নানা সমস্যার ছবি তোলা হয় এবং সমস্যাগুলো প্রাথমিকভাবে শনাক্ত করার পর তা ডাটাবেজে যুক্ত করা হয়। প্রায় ৮০ হাজার ছবি থেকে বাছাই করে ১২০টি ফসলের ১০০০ এর বেশি সমস্যার ছবি সমাধানসহ পর্যায়ক্রমে যুক্ত করে কৃষকের জানালা তৈরি করা হয়।  
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার তথ্য কিভাবে ভেলিডেশন করা হয়?
উত্তর : কৃষকের জানালার ক্ষেত্রে ভেলিডেশনের চেয়ে বেশি কিছু করা হয়েছে। সেটি হলোÑ তথ্য যাচাই করার পাশাপাশি কোন কোন তথ্য কোথায় কিভাবে কতটুকু সন্নিবেশিত হবে তাও নিশ্চিত করা হয়েছে। কৃষকের জানালাকে একটি প্রমিত তথ্যভা-ার হিসাবে তৈরির চেষ্টা করা হয়েছে।  
কৃষকের জানালা প্রমিতকরণ : প্রতি ১০০টি সমস্যা কৃষকের জানালায় যুক্ত হলে টেকনিক্যাল এক্সপার্ট কমিটির মিটিং আহ্বান করে তা পর্যালোচনা করা হয়। এভাবে ১১টি মিটিংয়ে ১০০০ এর বেশি সমস্যা ও তার সমাধান পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা চূড়ান্ত করা হয়।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার তথ্যের গ্রহণযোগ্যতা কতটুকু?
উত্তর : এটি একটি প্রমিত কৃষি সম্প্রসারণ টুলস। কৃষকের জানালার সব তথ্য ও তত্ত্ব দেশের কৃষি গবেষণা, কৃষি সম্প্রসারণ ও কৃষি শিক্ষার সাথে জড়িত বিশেষজ্ঞগণের সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের টেকনিক্যাল এক্সপার্ট কমিটি কর্তৃক প্রমিত (ংঃধহফবৎফরুবফ) করা হয়েছে।
প্রশ্ন : এ উদ্যোগটির যৌক্তিকতা কী?
উত্তর : কৃষকের জানালা ব্যবহার করে সেবা গ্রহীতা ও সেবা প্রদানকারী উভয়েই উপকৃত হচ্ছেন। সেবা গ্রহীতা দ্রুত ও সঠিক সেবা পাচ্ছেন আর সেবা প্রদানকারী কৃষকের জানালা ব্যবহার করে যেকোনো সমস্যার খুব সহজেই দ্রুত ও নির্ভুল সমাধান দিতে পারছেন। কৃষকের জানালা ব্যবহার করলে সেবা গ্রহীতা ও সেবা প্রদানকারী মধ্যকার সম্ভাব্য কমিউনিকেশন নয়েজ সর্বনিম্ন পর্যায়ে নামিয়ে আনা যায়। কৃষকের জানালা আসলে কৃষককে তার সমস্যাটি সম্প্রসারণ কর্মীর কাছে সঠিকভাবে তুলে ধরতে সহায়তা করে। এটি ব্যবহার করে একজন অগ্রসর কৃষক নিজেও তার ফসলের সমস্যার সমাধান করতে পারেন।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার পাইলটিংয়ের ফলাফল কি :
উত্তর : সেবা পেতে/ দিতে ৬৬.৬৬% পর্যন্ত সময় সাশ্রয় হয়েছে;
# সেবা পেতে/ দিতে ৮৬.০০% পর্যন্ত খরচ সাশ্রয় হয়েছে;
# সেবা পেতে/ দিতে ৬৬.৬৬% পর্যন্ত যাতায়াত সাশ্রয় হয়েছে;
# কৃষক বিশেষজ্ঞ কর্তৃক প্রমিত সঠিক পরামর্শ সেবা পাচ্ছেন;
# কৃষকের দোরগোড়ায় সেবা : ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, ফিয়াক ও এআইসিসির মাধ্যমে বাড়ির কাছেই কৃষক সেবা পাচ্ছেন;
# কৃষকের হাতের মুঠোয় সেবা : অনেক অগ্রসর কৃষক মোবাইলে কৃষকের জানালা ব্যবহার করে তাৎক্ষণিক সেবা  পাচ্ছেন।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার মোবাইলে কিভাবে ব্যবহার করা যায়?
উত্তর : কৃষকের জানালা ডিভাইস রেসপনসিভ, তাই এটি খুব সহজেই এনড্রোয়েড মোবাইলেও ব্যবহার করা যায়। এজন্য কৃষকের জানালা ফোল্ডারটি আপনার মোবাইলে কপি করুন বা শেয়ার ইটের মাধ্যমে অন্য মোবাইল থেকে রিসিভ করুন।
# যড়সব.যঃসষ ফাইলটি ‘যঃসষ ারববিৎ’ বা অন্য ব্রাউজার দ্বারা লঁংঃ ড়হপব সিলেক্ট করে ওপেন করুন।
# যে ব্রাউজারটিতে কৃষকের জানালা দেখতে সুবিধে হয় সেটি সিলেক্ট করে ধষধিুং সিলেক্ট করে আবার ওপেন করুন।
# নির্দেশনা অনুসরণ করে কৃষকের জানালা ব্যবহার করুন।
# আপনার মোবাইলে কৃষকের জানালা দেখতে সমস্যা হলে যে কোনো ড়ভভষরহব যঃসষ ারববিৎ যেমন : ঁপ নৎড়ংিবৎ ইন্টারনেট থেকে আপনার মোবাইলে নামিয়ে নিন অথবা শেয়ার ইটের মাধ্যমে অন্য মোবাইল থেকে রিসিভ করে ইনস্টল করে নিন।
# যড়সব.যঃসষ ফাইলটি ড়ভভষরহব যঃসষ দ্বারা ওপেন করুন।
# মূল পাতায় প্রবেশ করুন এবং নির্দেশনা অনুস্মরণ করুন।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালা মোবাইলে ব্যবহারের ক্ষেত্রে অসুবিধাগুলো দূর করা যায় কিভাবে?
উত্তর : কৃষকের জানালা মোবাইলে ব্যবহারের ক্ষেত্রে বিশেষ করে ছোট স্ক্রিনের মোবাইলের ক্ষেত্রে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছবি দেখে সমস্যা চেনা কঠিন হয়ে পড়ে। এজন্য করণীয় হলোÑ
# মোবাইলে অটোরোটেশন অপশনটি অন রাখুন এবং মোবাইলটি ঘুরিয়ে ছবিগুলো বড় করে দেখুন।
# ছবির ওপর ডাবল ক্লিক করেও ছবি বড় করে দেখা যায়।
# মোবাইলের ডিসপ্লে সেটিংসে গিয়ে ব্রাইটনেস বাড়িয়ে নিন, তাহলে ছবি আরও স্পষ্ট দেখা যাবে।
# আপনার মোবাইলে কৃষকের জানালা দেখতে সমস্যা হলে যে কোনো ড়ভভষরহব যঃসষ ারববিৎ  যেমন ঃ ঁপ নৎড়ংিবৎ ইন্টারনেট থেকে আপনার মোবাইলে নামিয়ে নিন অথবা শেয়ার ইটের মাধ্যমে অন্য মোবাইল থেকে রিসিভ করে ইনস্টল করে নিন।
# যড়সব.যঃসষ ফাইলটি ড়ভভষরহব যঃসষ দ্বারা ওপেন করুন।
# মূল পাতায় প্রবেশ করুন এবং নির্দেশনা অনুসরণ করুন।
প্রশ্ন : ফসলের বালাইব্যবস্থাপনায় পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকি কমাতে কৃষকের জানালার ভূমিকা কী?
উত্তর : কৃষকের জানালা একটি পরিবেশবান্ধব কৃষি সম্প্রসারণ টুলস। এতে বালাই ব্যবস্থাপনায় পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিগুলোকে (যেমন : আইপিএম পদ্ধতি) বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এবং কৃষকের আচরণগত পরিবর্তন যোগাযোগ বা ফার্মার্স বিহেভিয়ারাল চেঞ্জ কমিউনিকেশন (এফবিসিসি) শিরোনামে এমন কিছু বার্তা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যা পালন করলে কৃষকদের মধ্যে এমন কিছু আচরণগত পরিবর্তন আসবে যার ফলে পরবর্তী সময়ে একই সমস্যার পুনরাবৃত্তি কমে আসবে এবং রাসায়নিক বালাইনাশকের ব্যবহারও কমে আসবে। একই সাথে এতে সুনির্দিষ্ট পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে, যা এলোপাতাড়ি রাসায়নিক বালাইনাশকের ব্যবহার কমিয়ে আনবে বলে আশা করা যায়।
প্রশ্ন : এনড্রোয়েড ছাড়া অন্যান্য মোবাইলেও কৃষকের জানালার ব্যবহার করা যায় কী?
উত্তর : কৃষকের জানালা অফলাইনে শুধু স্মার্টফোন/ এনড্রোয়েড মোবাইলেই ব্যবহার করা যায়। তবে ইন্টারনেট সাপোর্ট করে এমন যে কোনো মোবাইলেই অনলাইনে কৃষকের জানালা ব্যবহার করা যায়। এজন্য এ লিংকটি ভিজিট করতে হবে : িি.িরহভড়শড়ংয.মড়া.নফ/শৎরংযড়শবৎলধহধষধ/যড়সব.যঃসষ
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার কার্যক্রম কবে থেকে শুরু হয়?
উত্তর : ভাবনাটি শুরু হয় ২০১১ এর শুরুর দিকে। পরীক্ষামূলকভাবে কাজ শুরু হয় ২০১৩ এর মাঝামাঝি সময়ে। এটুআই প্রোগ্রাম, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সহযোগিতায় আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুরু হয় ১৫ জুন ২০১৪ থেকে।
প্রশ্ন : কৃষকের জানালার বৈশিষ্ট্য কি কি?
উত্তর :
১. কৃষকের জানালা ব্যবহার করা সহজ ও ব্যবহারকারী বান্ধব;
২. এটি কৃষকবান্ধব : কৃষকের জানালায় ব্যবহৃত প্রতিটি ছবি মাঠ থেকে তোলা এবং কৃষক মাঠে সমস্যাটি ঠিক যেমন দেখতে পান ঠিক সে রকম ছবিই ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে কৃষক সঠিকভাবে সমস্যাটি চিনতে পারেন। (গবেষণায় দেখা গেছে, ঝকমকে ও ফটোশপে কাজ করা ছবি কৃষকদের বিভ্রান্ত করে। মাঠের অবস্থার সাথে মিল না পেলে কৃষক সমস্যাটি চিনতে পারেন না।)
৩. এটি পরিবেশবান্ধব : এতে বালাই ব্যবস্থাপনায় পরিবেশবান্ধব পদ্ধতিগুলোকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এবং কৃষকের আচরণগত পরিবর্তন যোগাযোগ (এফবিসিসি) অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যা কৃষকদের মধ্যে এমন কিছু আচরণগত পরিবর্তন আনবে যার ফলে পরবর্তী সময়ে একই সমস্যার পুনরাবৃত্তি কমে আসবে এবং রাসায়নিক বালাইনাশকের ব্যবহার কমিয়ে আনবে।
৪. অংশগ্রহণমূলক : কৃষকের জানালায় ছবি দেখে কৃষক নিজেই তার সমস্যাটি চিহ্নিত করছেন ফলে তিনি সমাধান পাওয়ার সাথে সাথে বিষয়টি নিজেও শিখছেন।
৫. ডিভাইস রেসপনসিভ : কৃষকের জানালা যে কোনো কম্পিউটার, ল্যাপটব, ট্যাব ও স্মার্টফোন বা এন্ড্রোয়েড মোবাইলে ব্যবহার করা যায়।
৬. প্রমিত কৃষি সম্প্রসারণ টুস : কৃষকের জানালাকে দেশের কৃষি গবেষণা, কৃষি সম্প্রসারণ ও কৃষি শিক্ষার সাথে জড়িত বিশেষজ্ঞগণের সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের টেকনিক্যাল এক্সপার্ট কমিটি কর্তৃক প্রমিত করা হয়েছে।
প্রশ্ন: কৃষকের জানালা কি কৃষি বিশেষজ্ঞের বিকল্প?
উত্তর : মোটেই না। কৃষকের জানালা কৃষকদের ফসলের সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধান দেয়ার সহায়ক উপকরণ মাত্র। সমস্যা সমাধানে বিশেষজ্ঞগণের পরামর্শই চূড়ান্ত। তবে কৃষকের জানালা বিশেষজ্ঞগণের মতামতকেই বহন করছে।  য়


Share with :

Facebook Facebook