কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

সম্পাদকীয় পৌষ-১৪২১

বাংলাদেশ ঋতুবৈচিত্র্যের দেশ। এ দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি কৃষি। রবি মৌসুম কৃষির জন্য বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। এ মৌসুমে একদিকে যেমন বিভিন্ন শাকসবজি উৎপাদিত হয় অন্যদিকে বোরো মৌসুমের ধান উৎপাদনের জন্যও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, বোরো মৌসুমে উৎপাদিত ধানের ওপরই দেশের খাদ্য নিরাপত্তা বহুলাংশে নির্ভরশীল। এজন্য কৃষির সার্বিক উন্নয়নে সুপরিকল্পিতভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এ দেশের সরকার, কৃষি গবেষক, সম্প্রসারণবিদ, কৃষিকর্মী, কৃষক-কৃষাণী সবাই। বোরো মৌসুমে ধানের ফলন কিভাবে বাড়ানো যায় সে প্রচেষ্টা আমাদের সবাইকে সমন্বিতভাবে অব্যাহত রাখতে হবে। পরিবর্তিত আবহাওয়ার সাথে তালমিলিয়ে ধানের চারা রোপণ, সার ও সেচ প্রয়োগ, রোগবালাই, পোকামাকড় দমন প্রভৃতি কাজ সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে হবে। ধানের ফলন বেশি পাওয়ার ক্ষেত্রে জাত নির্বাচন একটি বড় বিষয়। এ ক্ষেত্রে লবণাক্ত এলাকায় ব্রিধান৪৭ ও ব্রিধান৬১ এবং খরাপ্রবণ এলাকায় খরা সহনশীল জাতের ধান নেরিকা-১ চাষাবাদ করা যেতে পারে।
       চাষি ভাইয়েরা, আপনারা জানেন মসলা উচ্চমূল্যের ফসলগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমাদের দেশে মসলার ঘাটতি থাকায় প্রতি বছর প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করে মসলা আমদানি করতে হয়। কিন্তু দেশে মসলা চাষের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট বগুড়াতে একটি মসলা গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন করে বিভিন্ন মসলা ফসল চাষের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ প্রচেষ্টার ফল হিসেবে বারি আলুবোখারা-১ নামে আলুবোখারার একটি জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে যার ফলন হেক্টরপ্রতি ৭ থেকে ১০ টন পাওয়া যাচ্ছে। এটি আমাদের জন্য খুবই খুশির খবর। শুধু আলুবোখারাই নয়, অন্যান্য মসলা ফসল চাষ করে ইতোমধ্যেই যথেষ্ট সুফল পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে। আমরা আশা করি অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ মসলা ফসল চাষে আরো অনেক দূর এগিয়ে যাবে।
         সুপ্রিয় পাঠক, পৌষ মাস শীতের মাস। এ মাসে বাজারে প্রচুর শাকসবজি পাওয়া যায়। সবজি আমাদের শরীর গঠন ও পুষ্টিসাধনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে থাকে। এজন্য সবারই পর্যাপ্ত পরিমাণে শাকসবজি খাওয়া প্রয়োজন। তবে শাকসবজি যেন বিষমুক্ত হয় সে ব্যাপারে কৃষক ভাইদের বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে। পারতপক্ষে কীটনাশকের ব্যবহার পরিহার করে শাকসবজি উৎপাদন করতে পারলে নিজের জন্যও মঙ্গল দেশের জন্যও মঙ্গল। অতএব, আসুন এ ব্যাপারে আমরা সবাই সচেতন হই, স্বাস্থ্যবান জাতি ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলি।
 

Share with :

Facebook Facebook