কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

সম্পাদকীয়

 
বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি কৃষি। এ জন্য কৃষির সার্বিক উন্নয়নে সুপরিকল্পিতভাবে কৃষি গবেষক, সম্প্রসারণবিদ, কৃষিকর্মী, কৃষক-কৃষাণী সবাইকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।  বোরো মৌসুমে ধানের ফলন বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সেচ ও সার প্রয়োগ এবং সঠিকভাবে ফসলের যত্ন-পরিচর্যা আমাদের সবাইকে সমন্বিতভাবে চালিয়ে যেতে হবে। ধানের পাশাপাশি প্রচলিত অপ্রচলিত নানা ধরনের ফসলের চাষাবাদ করে দেশের খাদ্যশস্যের ভাণ্ডারকে সমৃদ্ধ করতে হবে। দেশে ইদানীং এমন  অনেক চর জেগে উঠেছে যেখানে ধান, সবজি ও ডাল ফসলের চাষ হচ্ছে। পদ্মা ও যমুনা নদীতে বড় বড় অনেক চর জেগেছে । এসব চরে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ফসল ফলানো হচ্ছে। এতে প্রতি বছর দেশের আবাদি জমি বিভিন্ন কারণে যে এক শতাংশ হারে হ্রাস পাচ্ছে তার গতি কিছুটা হলেও রোধ করা সম্ভব হচ্ছে বলে আমরা মনে করি। কুড়িগ্রামের চরে মসুর-মুগডাল-আমন ধান শস্যবিন্যাসের মাধ্যমে চাষাবাদ করে সুফল পাওয়া যাচ্ছে বলে জানা গেছে। বাংলাদেশে প্রায় এক মিলিয়ন হেক্টর চর জমি আছে। যেহেতু চর এলাকার মাটির গুণাগুণ, পরিবেশ ও প্রতিবেশ অন্যান্য অঞ্চল থেকে ভিন্ন তাই চরের কৃষি ব্যবস্থাপনাও ভিন্ন। এজন্য এখানকার কৃষকদের প্রশিক্ষণ দেয়ার মাধ্যমে যুগোপযোগী করে তোলা একান্ত প্রয়োজন।
 
চাষি ভাইয়েরা, আমাদের দেশে এমন অনেক খাদ্য-ফসল আছে যেগুলো সম্পর্কে আমরা অনেকেই ওয়াকিবহাল নই। এসব ফসলের মধ্যে ঢেমশি এমনই একটি দানাজাতীয় ফসল যা খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা যায়। দেশের উত্তরাঞ্চলে এক সময় ঢেমশি যথেষ্ট জনপ্রিয় ছিল। এ ফসলটির চাষাবাদ আবার ফিরে আসছে। এ বিষয়টিকে অনেকেই আশার আলো হিসেবেই দেখছেন। খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের মাধ্যমে বিভিন্ন অপ্রচলিত ফসল যেমন-ঢেমশি, কাসাবা, জোয়ার, বাজরা, সরগম প্রভৃতি নিয়মিত খাদ্যতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা যায় তাহলে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে অনেকটাই সহায়ক হবে।
 
প্রিয় পাঠক ও শুভানুধ্যায়ী বন্ধুরা, আপনারা হয়তো জেনে খুশি হবেন যে, আগামী বৈশাখে কৃষিকথা ৭৫ বছরে পদার্পণ করবে। এ উপলক্ষে বৈশাখ সংখ্যাটিকে বিশেষ সংখ্যা হিসেবে প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সংখ্যাটিতে খ্যাতনামা কৃষিবিদ, কৃষি বিজ্ঞানী, কৃষি গবেষক, সম্প্রসারণবিদ প্রমুখের তথ্য ও প্রযুক্তিভিত্তিক লেখা ছাপা হবে। আমরা আশা করি কৃষিকথার ৭৫ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে আয়োজিত কর্মকাণ্ডে সবাই শরিক হবেন এবং দেশ ও জাতির সমৃদ্ধিতে অবদান রাখবেন।
 
 

Share with :

Facebook Facebook