কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ জানুয়ারি ২০২২

বিনায় ‘পারমাণবিক শক্তির মাধ্যমে টেকসই কৃষি’ আন্তর্জাতিক সম্মেলন/// প্রতিকূল পরিবেশে চাষোপযোগী জাত উদ্ভাবনে গুরুত্ব দিতে হবে: কৃষিমন্ত্রী


প্রকাশন তারিখ : 2022-01-19

১৯ জানুয়ারি ২০২২
ময়মনসিংহে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটে (বিনা) শুরু হয়েছে ‘পারমাণবিক শক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে টেকসই কৃষি’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন। আজ বুধবার বিকালে সচিবালয় থেকে ভার্চুয়ালি প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হয়ে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিনা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এসময় কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমাদের কৃষিতে এখন সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন জলবায়ু পরিবর্তনসহসশীল ও প্রতিকূল পরিবেশে চাষের উপযোগী ফসলের জাত ও প্রযুক্তি। পরমাণু শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারের মাধ্যমে এসব জাত ও প্রযুক্তি আরও বেশি করে উদ্ভাবন করতে হবে। এক্ষেত্রে বিজ্ঞানী-গবেষকদেরকে নিবিড়ভাবে কাজ করে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা টেকসই করতে হবে। 

সম্মেলনে ১২ টি দেশের ২০ টি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২০০ জনের বেশি বিজ্ঞানী হাইব্রিড ফর্ম্যাটে অংশগ্রহণ করছেন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিনার মহাপরিচালক  মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম ও আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার প্রতিনিধি  আইজ্যাক কফি বিমপং। এই সম্মেলনে পারমাণবিক কৌশল, মিউটেশনসহ আধুনিক কৃষি গবেষণা পদ্ধতিতে প্রাপ্ত ফলাফল উপস্থাপন করা হবে। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে কৃষিতে পারমাণবিক শক্তি ও আধুনিক কলাকৌশলের ব্যবহার সম্পর্কে অভিজ্ঞতা বিনিময় হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিসচিব মো: সায়েদুল ইসলাম। বিনার মহাপরিচালক মির্জা মোফাজ্জল ইসলামের সভাপতিত্বে বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ মো. বখতিয়ার, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর লুৎফুল হাসান, হারভেস্টপ্লাসের কান্ট্রি ম্যানেজার  মো: খায়রুল বাশার, এসিআই এগ্রো বিজনেসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এফ এইচ আনসারি এবং ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজের  সিনিয়র ডাইরেক্টর মো: আনিসুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিনার ডিজি জানান, পরমাণু শক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারের মাধ্যমে বিনা এখন পর্যন্ত ১৮টি গুরুত্বপূর্ণ ফসলের মোট ১১৮টি উচ্চ ফলনশীল জাত এবং ফসলের নিবিড়তা বৃদ্ধি, রোগ ও পোকা দমন, পানি সাশ্রয়ী যুগোপযোগী প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে, যা দেশের কৃষির উৎপাদনশীলতা ও শস্যের নিবিড়তা বৃদ্ধিতে অবদান রেখে চলছে। পারমাণবিক কলাকৌশল ব্যবহার করে ফসলের জাত উদ্ভাবনে সারা বিশ্বে বিনা অর্থাৎ বাংলাদেশ অষ্টম স্থানে রয়েছে। বিনা উদ্ভাবিত ১১৮টি জাতের মধ্যে ৮২ টির ক্ষেত্রে পারমাণবিক কলাকৌশল ব্যবহার করা হয়েছে। সম্প্রতি বিনা ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা লবণসহিষ্ণু ধানের জিনোম সিকোয়েন্সিং উন্মোচন করেছে, যা বাংলাদেশে প্রথম।


Share with :

Facebook Facebook